শনিবার, জুন ১৫, ২০২৪
spot_img

সূর্যমুখী চাষ করে তৈল উৎপাদনের স্বপ্ন

ভান্ডারিয়ায় এই প্রথমবারের মতো সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা হয়েছে। প্রতিদিন মাত্র ১০ টাকা সঞ্চয় করে ৮ হেক্টর জমিতে সূর্যমুখীর চাষ করে সাড়া জাগিয়েছে আমাদের পথচলা নামক সংগঠন।

স্থানীয় গ্রামবাসী জানায়, পিরোজপুরের ভা-ারিয়া উপজেলার ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নের বিশিষ্ট সমাজসেবক রফিকুল ইসলাম মিলন সিকদার এর উদ্যোগে ২০২১ সালে এলাকার সাধারন খেটে খাওয়া মানুষদের আয় থেকে দৈনিক ১০ টাকা সঞ্চয়ের উদ্দেশ্য নিয়ে গঠন করে আমাদের পথচলা সংগঠনটি। বর্তমানে এ সংগঠনের দেড়শত সদস্যদের সঞ্চয় প্রায় আট লক্ষ টাকা। সদস্যদের সঞ্চয়কৃত কৃত টাকার থেকে ২০২২ সালের শুরুরদিকে প্রায় ১ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা দিয়ে একটি সরিষা ভাঙ্গার মেশিন ও কিছু সরিষা কিনেন তৈরি করেন খাঁটি সরিষার তৈল।

৩২০ টাকা কেজি দামে নিজেরাই তা ক্রয় করেন এবং সরিষার উচ্ছিষ্টা অংশ খৈল গো খাদ্য এবং কৃষিপণ্যতে ব্যবহার করেন এলাকার চাষিরা। বর্তমান বছরে সংগঠনটি উপজেলার দক্ষিন শিয়ালকাঠি গ্রামে নিজেদের উদ্দ্যোগে ও উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় ৮ হেক্টর জমিতে প্রায় আড়াইলক্ষ টাকা ব্যয়ে তৈল বীজ জাতীয় শস্য সূর্যমুখীর পরীক্ষামূলক চাষ করেছেন। আবহাওয়া এখন পর্যন্ত অনুকূলে থাকায় বাম্পার ফলনের আশা করছেন তারা।

আমাদের পথ চলা সংগঠনের উদ্যোক্তা রফিকুল ইসলাম মিলন সিকদার বলেন, সল্প আয়ের মানুষের সঞ্চয় ও আয় বৃদ্ধি এবং খাঁটি পন্য ব্যবহারের উদ্দ্যেসে আমার এ প্রচেষ্টা তাপ ছাড়া সূর্যমুখীর তৈল মানব দেহের জন্য অনেক উপকারী আমরা সাধারন মানুষদেরকে সল্পমূল্যে সূর্যমুখীর তৈল খাওয়াবার চেষ্টা করব।

উপজেলা উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মাইনুল হুদা বলেন, সূর্যমুখীর চাষাবাদ কৃষকের কাছে জনপ্রিয় করে তুলতে উপজেলার ভিটাবাড়িয়ায় আমাদের পথ চলা সংগঠনের সদস্যরা একত্রিত হয়ে ৮ হেক্টর জমিতে প্রণোদনা প্রকল্পের আওতায় পরীক্ষামূলক ভাবে এফ-১ (হাইব্রিড) জাতের সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা করেছেন। কৃষকদের এসব তৈল প্রক্রিয়াজাত এবং বাজারজাত করার ক্ষেত্রেও কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে কৃষকদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে।

আরো খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ